‘এক নেতার এক দল’ নিবন্ধনের অযোগ্য

সংবাদ প্রতিনিধি | ১২:৫৫ মিঃ, নভেম্বর ১৬, ২০১৭



নতুন রাজনৈতিক দল গঠন এবং এর নিবন্ধনের ক্ষেত্রে কঠোর হবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইচ্ছা করলেই এখন যে কেউ কল্পিত নাম-ধাম ও ঠিকানা ব্যবহার করে ইসির নিবন্ধন পাবে না। নিবন্ধনের জন্য দেয়া শর্ত পূরণ করা হয়েছে কি-না তা যাচাই-বাছাই করে তবেই নিবন্ধন দেবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। এক্ষেত্রে ‘এক নেতার এক দল’ বিষয়টি আর থাকছে না।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিবন্ধনের জন্য নতুন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে আবেদন চেয়েছে ইসি। তবে এবার আবেদন করলেই নিবন্ধন দিয়ে দেবে না ইসি। নিবন্ধনের জন্য দেয়া শর্ত পূরণ করা হয়েছে কি-না তাতে কড়া নজর রাখা হবে। এক নেতার এক দল, এমন কোনো দলকে নিবন্ধন দেবে না ইসি।

ইসির দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা জানান, যারা নিবন্ধন নিয়েছেন তাদের অনেকেই শর্ত ঠিকমতো পালন করছেন না। শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে তাদের থেকে কিছু দলকে বাদও দেয়া হতে পারে। নতুন দলের নিবন্ধনের ক্ষেত্রে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী, কমিশনের তিনটি শর্তের মধ্যে একটি পূরণ হলে একটি দল নিবন্ধনের যোগ্য বিবেচিত হয়।

শর্তগুলো হলো- ১. দেশ স্বাধীন হওয়ার পর যে কোনো জাতীয় নির্বাচনের আগ্রহী দলটিতে যদি অন্তত একজন এমপি থাকেন। ২. যে কোনো একটি নির্বাচনে দলের প্রার্থী অংশ নেয়া আসনগুলোয় মোট প্রদত্ত ভোটের ৫ শতাংশ পায় এবং ৩. দলটির যদি একটি সক্রিয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়, দেশের কমপক্ষে এক তৃতীয়াংশ (২১টি) প্রশাসনিক জেলায় কার্যকর কমিটি এবং অন্তত ১০০টি উপজেলা/মেট্রোপলিটন থানায় কমপক্ষে ২০০ ভোটারের সমর্থন সম্বলিত দলিল থাকে। ইসি সূত্র জানায়, এর আগে দশম সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আগ্রহী নতুন ৪৩টি রাজনৈতিক দল ইসিতে নিবন্ধনের আবেদন করেছিল। কিন্তু ৪১টিই দল নির্বাচন কমিশনের কাছে নিজেদের ‘যোগ্যতা’ প্রমাণ করতে পারেনি। মাত্র দুটি দল শর্ত অনুযায়ী মাঠপর্যায়ে কার্যালয় ও কমিটি থাকার তথ্য দিয়েছিল। এরপর তাদের নিবন্ধন দেয় কমিশন। দল দুটি হচ্ছে- বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) ও সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট।

নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল ও নতুন করে নিবন্ধন দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, নতুন দল আইন-কানুন মেনে আবেদন করতে পারবে। ইসির শর্ত পূরণ করলে তাদের নিবন্ধন দেয়া হবে। তিনি বলেন, এবার যারা নিবন্ধিত হবে কিংবা যারা নিবন্ধনের জন্য আবেদন করবে; ইসির শর্ত পূরণের ব্যাপারে কোনো শিথিলতা প্রদর্শন করা হবে না। সব তথ্য যাচাই করে নতুন দলের নিবন্ধন দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
এর আগে ৩০ অক্টোবর এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি। বিজ্ঞপ্তিটিতে জানানো হয়, নতুন দলের নিবন্ধনের জন্য চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। এ ছাড়া ইসির নিবন্ধনে থাকা ৪০টি দল নিবন্ধন নেয়ার সময় তাদের শর্ত পূরণ করতে পারছে কিনা তা ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে জানাতে ১ নভেম্বর দলগুলোকে চিঠিও দিয়েছে কমিশন।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে নিবন্ধন প্রথা চালুর পর এ পর্যন্ত ৪২টি দল নিবন্ধিত হয়েছে। এরমধ্যে স্থায়ী সংশোধিত গঠনতন্ত্র দিতে না পারায় ২০০৯ সালে ফ্রিডম পার্টির নিবন্ধন বাতিল এবং আদালতের আদেশে ২০১৩ সালে জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ রয়েছে।

মন্তব্যঃ সংবাদটি পঠিত হয়েছেঃ 555 বার।





এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

০৩:০৮ মিঃ, মে ২৬, ২০২০

করোনায় নির্বাচন সংকটে ইসি

১২:৫৫ মিঃ, নভেম্বর ১৬, ২০১৭

‘এক নেতার এক দল’ নিবন্ধনের অযোগ্য

০১:৪৯ মিঃ, আগস্ট ২৭, ২০১৭

৫৭ ধারায় সংশ্লিষ্টদের সম্পৃক্ততা

সর্বশেষ আপডেট

সাগরপথে ইতালি উপকূলে ৩৬২ বাংলাদেশী অভিবাসি বনানী কবরস্থানে সমাহিত সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন সাহারা খাতুনের জানাজা সকাল ১১টায় বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট করোনা আক্রান্ত সহকর্মীকে হারিয়ে শোকে মুহ্যমান নেতাকর্মীরা সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের শোক পরীক্ষিত ও বিশ্বস্ত সহযোদ্ধাকে হারালাম : প্রধানমন্ত্রী এরশাদের মৃত্যুবার্ষিকীর দিন ভোট না করতে ইসিকে অনুরোধ জানালেন জাপা একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম দ্রুত শুরু হবে: শিক্ষামন্ত্রী চামড়া রফতানির প্রস্তাব কাদেরের ৯ কার্যদিবসে বাজেট অধিবেশন শেষ সামরিক শাসকদের দুর্নীতির বীজ এখন মহীরূহ: প্রধানমন্ত্রী পাপুল আসন খালি হতে পারে মানবপাচারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনার বিধান রেখে সংসদে বিল পাস মুজিব শতবর্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন কৃষিমন্ত্রীর ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসা নিতে থাইল্যান্ডে সাহারা খাতুন বগুড়া-১ ও যশোর-৪ উপনির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি এশিয়ার সমুদ্রে দুই প্রধান শক্তির সামরিক মহড়া